লকডাউনের সময় সুসংবাদ দিলেন রাজ্যের মুখ্যমুন্ত্রী মমতা


করোনা ভাইরাস হলো বর্তমান বিশ্বের সবথেকে বড়ো ভিলেন।এই ভাইরাস খুব দ্রুত গতিতে মানুষ থেকে মানুষের শরীরে ছড়িয়ে পড়ছে।ফলে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা দ্রুত গতিতে বেড়ে চলেছে।এই ভাইরাসের ঔষধ তৈরির জন্য বিজ্ঞানীরা শতচেষ্টা করলেও এখনও পর্যন্ত সেভাবে সাফল্য পাইনি।তবে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, বর্তমান পৃথিবীতে করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণ করার একমাত্র পথ হলো লকডাউন।তবে লকডাউনের মধ্যে দিয়ে করোনা ভাইরাসের প্রভাব  কিছুটা কমলেও।আজ পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুত গতিতে বেড়ে চলেছে।


তবে বর্তমান ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৫০০ জনেরও বেশি মানুষ।তবে এর মধ্যে অনকে মানুষ সুস্থ হয়ে উঠেছেন।তবে বাংলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১০০ জনেরও বেশি।তবে আজ পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমুন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি দুটি সুখবর রাজ্যবাসীর জন্য দেন।প্রথমত তিনি আগে বলেছিলেন হাত পরিষ্কারের জন্য আমরা যে স্যানিটাইজার ব্যবহার করি তার কোনো অভাব রাজ্যে থাকবে না।এই সপ্তহের শেষে ৪৫ হাজার হ্যান্ড স্যানিটাইজার আসছে।তবে এই সেনিটাইজারের মূল্য অনেকটাই কম। ২০০ মিলি সেনিটাইজারের মাত্র ৮৫ টাকা।


তবে রাজ্যে লকডাউন চলায় রাজ্যের রেসনদোকান গুলিতে কালোবাজারির হার বৃদ্ধি পেয়েছে।রেসনদোকানের কালোবাজারি বন্ধ করার জন্য সরকার দুটি টোল ফ্রি নম্বর চালু করেছেন।১৮০০৩৪৫৫৫০৫ এবং ১৯৬৭ এই দুটি নাম্বারে কল করে রেশন সম্পর্কে যাবতীয় অভিযোগ করতে পারবেন সাধারণ মানুষ।আজ পর্যন্ত রেশন কালোবাজারিতে ২৫ জন ধরা পড়েছে।রাজ্যের খাদ্যমুন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন প্রয়োজন হলে এই দুর্নীতি গ্রস্থ রেশন দোকানদারদের লাইসেন্স বাতিল করা হতে পারে।

Post a Comment

Previous Post Next Post